আজ শুক্রবার সিলভার স্ক্রিনে মুক্তি পাচ্ছে ‘টার্মিনেটর’

আবার টার্মিনেটর, আবার আরনল্ড শোয়ার্জেনেগার। আবারও প্রযোজনায় জেমস ক্যামেরন। ফিরছেন লিন্ডা হ্যামিলটন। নগরীর সিলভার স্ক্রিন সিনেপ্লেক্সে আজ মুক্তি পাচ্ছে অ্যাকশন, অ্যাডভেঞ্চার ও সায়েন্সফিকশনধর্মী চলচ্চিত্র ‘টার্মিনেটর: ডার্ক ফেট’।
যাত্রা শুরু হয়েছিল ৩৫ বছর আগে, জেমস ক্যামেরনের হাত ধরে। বিজ্ঞান কল্পকাহিনির অ্যাকশন চলচ্চিত্র ‘টার্মিনেটর’ সিরিজের প্রথম ছবি ‘দ্য টার্মিনেটর’ মুক্তি পায় ১৯৮৪ সালে। প্রথম ছবির ব্যাপক সাফল্যের রেশ ধরে ১৯৯১ সালে মুক্তি পায় সিরিজের দ্বিতীয় ছবি ‘টার্মিনেটর টু’। প্রথম ছবির চেয়ে বেশি সাড়া ফেলেছিল ছবিটি।
ভিসিআর-ভিসিপির সেই যুগে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র অনুরাগীদের মধ্যেও সাড়া ফেলেছিল ‘টার্মিনেটর টু’। আরনল্ড শোয়ার্জেনেগার নামটি তখন থেকে এ দেশের দর্শকের মধ্যে পরিচিতি পায়। এক যুগ বিরতির পর ২০০৩ সালে সিরিজের তৃতীয় ছবি ‘টার্মিনেটর থ্রি: রাইজ অব দ্য মেশিনস’ মুক্তি পায়। প্রথম তিনটি ছবিতেই কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন আরনল্ড শোয়ার্জেনেগার। তবে ২০০৯ সালে সিরিজের চতুর্থ ছবি ‘টার্মিনেটর স্যালভেশন’ আর পঞ্চম ছবির ‘টার্মিনেটর: জেনেসিস’ মুক্তি পেলেও তাতে অভিনয় করেননি হলিউডের এই জনপ্রিয় তারকা। আগের ছবিগুলো বক্স অফিসে ঝড় তুললেও ‘টার্মিনেটর স্যালভেশন’ বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে।
এবার আবারও মিলবে গত শতকের আশি ও নব্বই দশকের সেই স্মৃতিজাগানিয়া ‘টার্মিনেটর’, ষষ্ঠ কিস্তি আসছে ‘টার্মিনেটর: ডার্ক ফেট’ নামে। নতুন গল্প, নতুন মোড়ক। পুরোনো কিছু মুখের সঙ্গে আছে নতুন মুখও। জেমস ক্যামেরনের গল্পে এবার ছবিটি পরিচালনা করেছেন ‘ডেড পুল’ ছবির পরিচালক টিম মিলার।
ছবির অভিনেত্রী লিন্ডা হ্যামিল্টন এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, অ্যাকশন দৃশ্যগুলো আগের তুলনায় দশ গুণ বড়। আর প্রযোজক ও সহ-চিত্রনাট্যকার জেমস ক্যামেরনের ভাষায়, ‘আগের দুটি মূল “টার্মিনেটর” অপেক্ষা এটা আরও বড়, আরও দারুণ। ছোট করে বলতে গেলে, এটি ভয়ানক, বিস্ময়কর!’ সব মিলিয়ে বলা যায়, নতুন পর্বে যুদ্ধটা আরও ভয়ংকর, আরও কঠিন হবে। যন্ত্রের হাত থেকে মুক্তির জন্য মানুষের এই যুদ্ধ শুধু চোখ ধাঁধিয়েই দেবে না, চিন্তা করতেও বাধ্য করবে।
আরনল্ড শোয়ার্জেনেগার একজন অভিনেতা, পেশাদার বডিবিল্ডার। তাঁকে সবাই চেনে ‘টার্মিনেটর’ হিসেবে। পরিবেশ রক্ষার জন্য এবার বাস্তবে ‘টার্মিনেটর’ হতে চান তিনি। আমি যদি সত্যি সত্যিই টার্মিনেটর হতে পারতাম, তাহলে টাইম মেশিনে করে অতীতে চলে যেতাম। মানুষকে পরিবেশদূষণ না করতে উদ্বুদ্ধ করতাম। একটা সবুজ ভবিষ্যৎ নির্মাণের জন্য কাজ করতাম। কেননা ইতিমধ্যে অনেক ক্ষতি হয়ে গেছে। এখান থেকে ঘুরে দাঁড়ানো সত্যিই কঠিন। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সাবেক এই গভর্নর দীর্ঘদিন ধরে পরিবেশ রক্ষা আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত।
এছাড়াও সিলভার স্ক্রিনে থাকছে হলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলি অভিনীত ‘ম্যালেফিসেন্ট: মিসট্রেস অব ইভিল’ এবং হলিউডের বহুল জনপ্রিয় ওয়ার্ল্ড রেটিংয়ে শীর্ষে থাকা ক্রাইম ও থ্রিলারধর্মী চলচ্চিত্র ‘জোকার’।
সিলভার স্ক্রিন সিনেপ্লেক্স নগরীর ষোলশহর এলাকা ফিনলে স্কয়ার শপিং মলের ৭ম তলায় অবস্থিত। টিকেট এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্যের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৭০১-৪৪৯৯৫৫ নম্বরে।

Related Article